প্রশাসন

উপনির্বাচনের আগে রক্তাক্ত দিনহাটার রিপোর্ট তলব কমিশনের

উপনির্বাচনের আগে ‘রক্তাক্ত’ দিনহাটার রিপোর্ট তলব কমিশনের

মোল্লা শফিকুল ইসলাম দুলাল
আগামী ৩০ অক্টোবর রাজ্যের যেসব বিধানসভা আসনে উপনির্বাচন রয়েছে, তার মধ্যে দিনহাটা অন্যতম। গত পঞ্চমীর রাতে বাংলাদেশ লাগোয়া কুচবিহার জেলার গীতলদাহ ২ অঞ্চলে যে সংঘর্ষ ঘটেছে। তার পুর্নাঙ্গ রিপোর্ট তলব করেছে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। আগামী ৩০ অক্টোবর দিনহাটা-সহ বাংলার চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন, এই চার কেন্দ্রে ভোটের জন্য ২৭ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে। দিনহাটার ঘটনার পর বাহিনীর পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কমিশন সূত্রে জানা প্রকাশ , দ্রুত দিনহাটায় আধাসেনাদের পাঠানোর বন্দোবস্ত করা হবে। পঞ্চমীর রাতে রক্তারক্তি ঘটে গিয়েছে কোচবিহারের দিনহাটায়। তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে মুড়িমুড়কির মতো গোলাগুলি চলে। তাতে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি পাঁচ জন। এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই ১১ জনকে আটক করেছে কোচবিহার পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তিদের নাম মান্নান হক এবং মুজফফর হুসেন। ঘটনায় গুরুতর আহতরা হলেন দুলাল মিঞা, মিন্টু হক, দিলদার হুসেন, আবাইদুল হক এবং জাহাঙ্গির আলম। এর মধ্যে দিলদাল হুসেন গীতালদহ গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য এবং সংঘর্ষে জাহাঙ্গিরের ডান হাত কাটা গিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এই পঞ্চায়েতে তৃণমূলের কোন্দল অনেক দিনের। যে গোষ্ঠী পঞ্চায়েত চালায় তাদের বিরুদ্ধে একাধিক বার অনাস্থা এনেছে অন্য গোষ্ঠী। এ নিয়ে আদালত পর্যন্ত মামলা গড়িয়েছে। গত ৪ অক্টোবর কলকাতা হাইকোর্টে গীতলদাহ পঞ্চায়েত নিয়ে শুনানির কথা ছিল। কিন্তু উপনির্বাচনের কারণে তা স্থগিত করা হয়।এরপরই রক্তাক্ত হলো এই এলাকা। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *