পুলিশ

রুপনারায়ণপুরে রহস্য মৃত্যু বধূর

গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা এক গৃহ বধূর, আত্মহত্যা মানতে নারাজ বধূর পরিবার

সালানপুর :- গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্ম হত্যার ঘটনা ঘটল সালানপুর থানার রূপনরায়নপুর পিঠাকেয়ারীতে।ঘটনার সম্পর্কে জানা যায় সোমবার সকালে পিঠাকেয়ারীর বাসিন্দা সঞ্জয় চ্যাটার্জী সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে দেখেন যে তার বাড়ির বাগানের লিচু গাছে তার স্ত্রী
দূর্বা চ্যাটার্জী(৩৬)এর দেহ ঝুলন্ত অবস্থায়।
তিনি অস্বস্তি কর অবস্থায় বাড়িতে থাকা তার 18 বছর বয়সী পুত্রকে ডাকেন এবং খবর দেওয়া হয় রূপনরায়নপুর পুলিশকে।
ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে দেখতে পায় যে বাগানের ছোট একটি লিচু গাছ আছে সেখানেই মহিলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করেন তবে মৃতদেহটি পা দুটি মাটিতে ছুঁয়ে ছিল।
এবং মৃত দুর্বা দেবীর হাতের শিরা ব্লেড দিয়ে কাটা আছে।তাছাড়া বাড়িথেকে লাল কালিতে লেখা একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করেছে পুলিশ। যেখানে লেখা আছে “আমি…. মামন, আমার সবকিছু ছিল, আমি সেইসব হেলায় হারালাম, আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়”। এদিকে দুঃসংবাদ পেয়েই তার বাপের বাড়ি থেকে তার বাবা কৃষ্ণদাস ব্যানার্জি সহ পরিজনেরা ফাঁড়িতে ছুটে আসেন। কৃষ্ণদাস বাবুর অভিযোগ এই হাতের লেখা তার মেয়ের নয়।তিনি এই ঘটনার সঠিক তদন্তের দাবি জানান।যদিও মৃতার স্বামী সঞ্জয় চ্যাটার্জী বলছেন তিনি এই সম্পর্কে কিছুই জানেন না। তাদের ১৬ বছরের এক পুত্র আছে।তিনি জানান কি কারণে এই সিদ্ধান্ত নিলো তার স্ত্রী তিনি তা বুঝতে পারছেন না।কিন্তু জানা গেছে এই পরিবারের উপর প্রচুর ঋণের বোঝা রয়েছে।এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশ সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে।
পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য আসানসোল জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান ।
কি কারণে আত্মহত্যা তা মেনে নিতে পারছে না পরিবারের কোনো সদস্য।পরিবারের তরফে রূপনারায়নপুর ফাঁড়িতে মৃত্যুর অভিযোগ জানিয়ে প্রকৃত তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *