ক্রীড়া সংস্কৃতি

‘এমডিজে জোড়ি নং ওয়ান’

গোপাল দেবনাথ,

মহাবীর দানওয়ার জুয়েলার্স’ এবং সন্মার্গ যৌথভাবে দম্পতিদের জন্য একটি অভিনব প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল ‘এমডিজে জোড়ি নং ওয়ান’ (MDJ Jodi No 1) নামে। তবে এটি একটু অন্য ধারার দম্পতিদের জন্য আয়োজিত হয়েছিল। বর্তমান যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে বিবাহের আগে কিছুদিন কোর্টশিপের একটি রেওয়াজ প্রচলিত হয়েছে। সেই সমস্ত Would Be Couple দের জন্য আয়োজিত হয়েছিল এই প্রতিযোগিতা, যা ভারতে প্রথম। তারা যাতে বিয়ের আগেই সেই বিশেষ দিনটির জন্য নিজেদের পছন্দমতো গয়না পছন্দ করে নিতে পারে, সেই উদ্দেশ্যেই এই প্রতিযোগিতা।
উল্লেখ্য, স্বর্গীয় মহাবীর প্রসাদ সোনির মাধ্যমে ১৯৭০ সালে মহাবীর দানওয়ার জুয়েলার্স-এর পথ চলা শুরু হয়েছিল। বর্তমানে যার দায়িত্ব সামলাচ্ছেন তাঁর পুত্র বিনোদ, কৈলাশ এবং জীবন। সঙ্গে রয়েছেন নাতিরাও- বিজয়, অরবিন্দ, অমিত এবং সন্দীপ। সোনা, কুন্দন, জড়োয়া এবং হীরের গয়নার সম্ভার রয়েছে তাঁদের শোরুম-এ। কলকাতার বড়বাজার, সিটি সেন্টার মল ছাড়াও নতুন দিল্লির পীতমপুরায় এই জুয়েলারির শোরুম রয়েছে।
২০২১-এর ১৫ জানুয়ারি শুরু হয়েছিল এই প্রতিযোগিতা। আজ রবিবার আইটিসি রয়াল-এ গ্র্যান্ড ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়ে গেল। অনুষ্ঠানে জুড়ি মেম্বার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রিচা শর্মা (অভিনেত্রী), ডলি জৈন (স্বনামধন্য শাড়ি ড্রেপিস্ট), নয়না মোরে (বিখ্যাত মোটিভেশনাল স্পিকার)। এছাড়াও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লোপামুদ্রা মন্ডল সাহা, মডেল অ্যাডোলিনা গাঙ্গুলি, মোহর দত্ত এবং আরও বিশিষ্ট জন।

যে সকল প্রতিযোগী এখানে অংশগ্ৰহণ করতে ইচ্ছুক ছিলেন, তাঁদের কোর্টশিপের ছবি প্রতি সপ্তাহে পাঠাতে বলা হয়েছিল, এবং তার মধ্যে থেকে সেরাটা বাছাই করে নেওয়া হয়েছিল। তার পাশাপাশি তাঁদের একটি স্ক্রিনিং রাউন্ডের মধ্যে দিয়েও যেতে হয়েছিল প্রতিযোগিতার অংশ হিসেবে। সপ্তাহের সেরা কাপল এমডিজে- শো রুমে এসে একটি ডিসকাউন্ট কুপন জিতে নিয়েছিলেন। গ্র্যান্ড ফিনালে-র জন্য ৯ জন কাপল মনোনীত হয়েছিলেন। গোটা প্রতিযোতা থেকে ‘টপ জোড়ি’ বেছে নিতে তিন মাস সময় লেগেছিল। ‘জোড়ি অফ দ্য মান্থ’ এবং ফাইনাল ‘বিজয়ী জোড়ি’ রা মহাবীর দানোয়ার জুয়েলারির গয়না পরে সেখানকারই স্টোর-এ ফটোশ্যুট করলেন ফিনালে পর্ব শেষে। বিজয়ী কাপল পেলেন একটি I Phone 12 (64GB)| এছাড়াও মোট ৪ জন অর্থাৎ ২ রানার-আপ বিজয়ী জোড়ি পেলেন ৫স্টার হোটেলের একটি ডিনার ডেট।
মহাবীর দানওয়ার জুয়েলারির ডিরেক্টর মিঃ বিজয় সোনি সংবাদমাধ্যমকে জানালেন, “ফাইনালের জন্য ৫ টি জোড়ি নির্বাচন যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং ছিল। প্রায় প্রতিদিন অ্যাপ্লিকেশন জমা পড়েছে। কফি রাউন্ড, প্রশ্নোত্তর পর্ব, স্ক্রিনিং এবং প্রফেশনাল ফটোশ্যুটের মাধ্যমে দম্পতি নির্বাচন করা হয়েছে। নির্বাচিত কাপলদের গিফট হ্যাম্পার দেওয়ার পাশাপাশি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, কোন ধরনের গয়না তাঁদের বিয়ের সেই বিশেষ দিনের জন্য মানানসই হবে”।
সন্মার্গের ডিরেক্টর মিসেস রুচিকা গুপ্তা জানান, “সন্মার্গ এই অভিনব আইডিয়ার মাধ্যমে নতুন যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে এক জোরালো বন্ডিং তৈরি করতে চেয়েছে। অতীতের যুব সম্প্রদায়ের সঙ্গে বর্তমানের যুব সম্প্রদায়ের মানসিকতার মেলবন্ধন ঠিক কিভাবে কাজ করে, তা বুঝতে এই ইভেন্ট যথেষ্ট সাহায্য করেছে আমাদের”।
অভিনেত্রী রিচা শর্মা জানান, ” এমডিজে’ এবং ‘সন্মার্গ’ যৌথভাবে ‘MDJ Jodi No 1’ এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে কাপল দের খুব সুন্দর একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরী করে দিয়েছে নিজেদের মধ্যে সাহচর্য এবং বন্ধন দৃঢ় করার। প্রিলিমিনারি রাউন্ডে আমরা কাপলদের মধ্যে বন্ধুত্ব কতটা রয়েছে, তা যাচাই করেছি এবং গ্র্যান্ড ফিনালেতে মেধার যাচাই হয়েছে”।
শাড়ি ড্রেপিস্ট ও স্টাইলিস্ট ডলি জৈন অনুষ্ঠানের ভূয়সী প্রশংসা করে জানালেন, “প্রত্যেক কাপল তাঁদের সেরাটা দিয়েছেন। সকলের মধ্যে থেকে সেরা কাপল বাছাই করা সত্যিই কষ্টসাধ্য ছিল”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *