প্রশাসন

বীরভূমে করোনা পজিটিভ হাজার পার, কোথায় থাকবে এরা?

খায়রুল আনাম


আশঙ্কাকে সত্যি প্রমাণিত করে বীরভূম জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হাজির ছাড়িয়ে যাওয়ায়, এবার সেইসব আক্রান্তদের কোথায় রাখা হবে, তা নিয়েই এখন চিন্তিত ও ঘোরতর সমস্যায় পড়েছে বীরভূম জেলা প্রশাসন।জানা যাচ্ছে যে,  জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার  পঞ্চাশ  ছাড়িয়ে গিয়েছে। আর তার জেরে হাসপাতালগুলিতে শয্যা সংখ্যাতে তো টান পড়ছেই, সেইসাথে সেফ হোমগুলিও  একটু একটু করে ভর্তি হয়ে আসায়, তাই এবার,  উপসর্গহীন আক্রান্তদের  হোম আইসোলেশনে রাখার উপরেই জোর দিতে চাইছে জেলা প্রশাসন। জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসুও  স্বীকার করছেন যে, সবাইকে সেফ হোমে জায়গা দেওয়া সম্ভব হবে না। তাই রাজ্যের নির্দেশ মেনে উপসর্গহীনদের  হোম আইসোলেশনে রাখার বিষয়ে ব্লকগুলিকে বলা হয়েছে। কিছু ক্ষেত্রে হোম আইসোলেশনে রাখতে গিয়ে  বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে। তাই, জনমানসে সচেতনতা আনতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে সচেতনতামূলক প্রচার করা হচ্ছে।         জেলা স্বাস্থ্য দফতর  দাবী করছে, জেলায় আক্রান্তদের বেশিরভাগই উপসর্গহীন। তাই, যাঁরা উপসর্গহীন তাঁদের  বেশিরভাগকেই হোম আইসোলেশনে রাখার উপরে জোর দেওয়া হচ্ছে।  যদিও  হোম আইসোলেশনে রাখার ক্ষেত্রে স্থানীয়ভাবে নানা ধরনের বাধার সম্মুখীনও হতে হচ্ছে।  আর যেখানে পরিকাঠামো নেই, সেখানে সেফ হোমে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আবার স্বাস্থ্য দফতর মনে করছে যে, জেলায় কোনও এলাকায় করোনা সংক্রমণ কতটা তা জানতে জেলাতেই  অ্যান্টিজেন টেস্ট শুরু হয়েছে। এরফলে  খুব কম সময়ের মধ্যে তাঁদের রিপোর্ট চলে আসায় বেশি মাত্রায় টেস্ট করা হচ্ছে। এরফলে সংক্রমণের সংখ্যাও বাড়ছে। এমন অবস্থায় উপসর্গহীনদের হোম আইসোলেশনে রাখার জন্য  কয়েকটি দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  আক্রান্তকে পৃথক করে রাখতে  গেলে পৃথক ঘরের প্রয়োজন।  পৃথক শৌচাগারেরও প্রয়োজন। যা অনেকেরই নেই। নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত পরিবারের  অন্য সদস্যরাও যাতে আক্রান্তের সংস্পর্শে না আসেন, সে দিকেও নজর রাখতে হয়। এই ধরনের মানসিকতা ও পরিকাঠামো থাকলে তবেই  সেই উপসর্গহীনকে হোম আইসোলেশনে রাখা হবে। অনেক ক্ষেত্রে প্রতিবেশীরা বাধা দেওয়ায় হোম আইসোলেশনে রাখার কাজে অসুবিধা হচ্ছে। কোথাও এই ধরনের অসুবিধা হলে, সংশ্লিষ্ট ব্লক হাসপাতালের সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে  জেলা প্রশাসনের দিক থেকে ।।   

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *