সাহিত্য বার্তা

স্বাধীনতা খুঁজছি

স্বাধীনতা খুঁজছি / অন্তরা সিংহরায়,

৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের সকালে দাঁড়িয়ে স্বাধীনতা খুঁজছি ,
স্বাধীনতা খুঁজছি ফুটপাতে শুয়ে থাকা নগ্ন শিশুর রাত্রির তলপেটে।
স্বাধীনতা খুঁজছি রাতের বাসে কাজ ফেরত একাকী নারীর অনিশ্চিত , উদ্বিগ্ন চোখে।
স্বাধীনতা খুঁজছি এম.এ. পাশ যুবকের বেকারত্বের আটপৌরে জীবনের অভাব জ্বালায়।
স্বাধীনতা খুঁজছি ‘পরিযায়ী’ শ্রমিকের ছাল ওঠা পায়ের তলদেশের দাউ দাউ যন্ত্রণায়।
স্বাধীনতা খুঁজছি করোনা অতিমারীর হাসপাতাল চত্বরে ঢলে পড়া আঠারোর ফুসফুসে।
স্বাধীনতা খুঁজছি ছাঁটাই কর্মীর দীর্ঘশ্বাসে,পরিবারের খিদের আগুনে।
স্বাধীনতা খুঁজছি লাঙল ফেলে নির্জন বটগাছে ঝুলন্ত কৃষকের দেহে।
স্বাধীনতা খুঁজছি শিশু শ্রমিকের হারানো শৈশবের গুমোট কান্নায় ।
স্বাধীনতা খুঁজছি কবির পরাধীন কালো অক্ষরের দম ঠাসাঠাসি আর্তনাদে।
কাঁদছে মাটি ,কাঁদছে আকাশ ,কাঁদছে ভারতবর্ষ।

অভাব অনটন দুর্দাশাতে কাঁদছে দেখো মানুষ ।

এই সকালে পাড়ার মোড়ে মোড়ে উঠবে ঠিকই ভারত পতাকা , ভগ্নস্তূপে দাঁড়িয়ে ফত্ ফত্ করে উড়তে থাকবে পতাকা ।
অষ্টম ফেল নেতা হরি বাবুর কালো লোলুপ হাতের আঙুলে পতাকা দড়ি , মুখে মিথ্যে ভাষণে হবে স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন ।
শিশু জানবে স্বাধীনতা মানে একটা লাড্ডু , কয়েকটা চকলেট । মধ্যবিত্ত জানবে স্বাধীনতা মানে মুখ বন্ধ , প্রতিবাদহীন নীরবতা। বিত্তশালী জানবে স্বাধীনতা কোনো আমোদ , বিলাসী শব্দ একটা ছুটির দিন । গরীব জানবে স্বাধীনতা মানে আরো একটা লড়াই-এর দিন , দশটা সাধারণ দিনের মতো ।
সন্ধ্যে আসছে ঘনিয়ে পতাকার গায়ে লাগছে শতাব্দীর কালো ছাপ ।
অট্টরোলে হাসছে দেখো ক্ষমতার লড়াই ,
দখল ,,দখল ,,দখল ,,

স্বাধীনতা খুঁজছি ,,,,,,
স্বাধীনতা খুঁজছি ,,,,,
স্বাধীনতা খুঁজছি ,,,,,
আসলে স্বাধীনতা না, খুঁজছি নেতাজীর মতো এক সর্বত্যাগী নেতা ,
খুঁজছি স্বামী বিবেকানন্দের মতো এক আর্দশ পুরুষ ,
খুঁজছি ক্ষুদিরামের মতো বলিদানী এক কিশোর ,
খুঁজছি ভগৎ সিং ,বিনয় ,বাদল , দিনেশের মতো সাহসী যোদ্ধা যাঁরা কাঁধে করে দেশটাকে আবার পৌঁছে দেবে রাত পেরিয়ে স্বাধীনতার সকালে ।
এবারের স্বাধীনতা মুক্তির নয় এবারের স্বাধীনতা শিক্ষার হোক , স্বাস্থ্যের হোক, শৈশব-নারীর রক্ষার হোক ,কর্ম সংস্হানের হোক , অভাব দূরীকরণের হোক ।
এই দেশের মাটি যে জওয়ানের রক্ত -ঋণে পবিত্র আছে আজও সেই শহীদ সন্তানের মায়ের আঙুলে জড়িয়ে থাকবে সেই সকালে স্বাধীন পতাকার দড়ি । সেদিন জঙ্গল ঘেরা সাঁওতাল পাড়ার প্রতিটি ঠোঁট থেকে দিল্লির রাজপথে প্রতিটি স্তরের মানুষ একসাথে বলে উঠবে
‘ জয় হিন্দ ,বন্দেমাতরম ’। সমগ্র ভারত একসুরে গেয়ে উঠবে ‘জাতীয় সংগীত ‘ ।
সেদিন সার্থক হবে তোমার আমার স্বাধীনতা।
এই জনসমুদ্রের সৈকতে একটা নতুন ভারতের জন্ম দাও হে স্বাধীনতা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *