ক্রীড়া সংস্কৃতি

বাইশে শ্রাবণ স্মরণে উখরায় রক্তদান শিবির

রবীন্দ্রনাথের তিরোধান দিবসে উখরায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জী

       একটু অন্যভাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আশিতম তিরোধান দিবস পালন করল পশ্চিম বর্ধমানের দুর্গাপুরের স্বেচ্ছাসেবী সংস্হা 'উত্তিষ্ঠিত জাগ্রত'। গত ৮ ই আগষ্ট রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের তিরোধান দিবসে সংস্হার উদ্যোগে এবং পাণ্ডবেশ্বরের তৃণমূল বিধায়ক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর অনুপ্রেরণায় ও উখরার নবভারতী সংঘের সক্রিয় সহযোগিতায় উখরার কমিউনিটি হলে একটি বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবির আয়োজিত হয়। একই সঙ্গে মহিলাদের জন্য একটি সচেতনতামূলক শিবিরও আয়োজিত হয়।
      শিবিরে প্রায় দুই শতাধিক মানুষ তাদের স্বাস্হ্য পরীক্ষা করান।   স্বেচ্ছাসেবী সংস্হার প্রাণপুরুষ তথা বিশিষ্ট অর্থোপেডিক সার্জন ডাঃ উদয়ন চৌধুরী, বিশিষ্ট স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ কবিতা চৌধুরী, ও জেনারেল ফিজিশিয়ান ডাঃ সুজন দে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেন ।  এছাড়াও  বিধান প্যাথল্যাব এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ব্যক্তিদের বিনামূল্যে ব্লাড গ্রুপ টেস্ট, সুগার টেস্ট, বোন ম্যারো ডেনসিটি টেস্ট করা হয়। এলাকার প্রথিতযশা ডাক্তারদের কাছে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষার সুযোগ পেয়ে এলাকার সাধারণ মানুষ খুব খুশি। এছাড়াও স্বেচ্ছাসেবী সংস্হার পক্ষ থেকে  মহিলাদের জন্য একটি সচেতনতা শিবিরের আয়োজন করা হয়। কিভাবে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে সেবিষয়ে বিশেষজ্ঞরা উপস্থিত মহিলাদের পরামর্শ দেন। এছাড়াও বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে শিশুদের প্রতি কিরূপ আচরণ করতে হবে সেটাও বুঝিয়ে বলা হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে দীর্ঘদিন ধরে ঘরের মধ্যে আটকে থাকার ফলে শিশুদের মানসিক অবস্থার পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। সুতরাং মায়েদের সতর্ক থাকতে হবে।
           এর আগে উপস্থিত বিশিষ্ট ব্যক্তিরা রবীন্দ্রনাথের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করেন। 
       অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাণীগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক তাপস ব্যানার্জ্জী, পাণ্ডবেশ্বরের বিধায়ক নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, অণ্ডাল থানার আই.সি নাসিম সুলতানা, স্হানীয় প্রধান ও উপপ্রধান সহ নবভারতী সংঘ ও স্বেচ্ছাসেবী সংস্হার সদস্যরা।
        বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শিবিরের আয়োজন করার জন্য নরেন্দ্রনাথ বাবু 'উত্তিষ্ঠিত জাগ্রত' সংস্হার কর্ণধার ডাঃ উদয়ন চৌধুরী সহ অন্যান্য সদস্যদের এবং সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য নবভারতী সংঘের সদস্যদের ভূয়সী প্রশংসা করেন। পরে তিনি বলেন - ডাঃ চৌধুরী সহ অন্যান্য ডাক্তারবাবুরা আমাদের এলাকার গর্ব। চরম পেশাদারিত্বের যুগে অর্থই যেখানে শেষ কথা সেখানে এইসব ডাক্তারবাবুদের ভূমিকা প্রশংসনীয়। প্রসঙ্গত নরেন্দ্রনাথ বাবু দীর্ঘদিন ধরেই সংস্হার প্রতিটি সেবামূলক কাজের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছেন ।
         অন্যদিকে ডাক্তার চৌধুরী বললেন - বেঁচে থাকার জন্য অবশ্যই অর্থের দরকার। কিন্তু তার বাইরেও সমাজের সাধারণ মানুষের প্রতি একটা দায়িত্ব ও কর্তব্যবোধ থেকে যায়। এই সামাজিক কর্তব্যবোধ থেকেই এই ধরনের সেবামূলক কাজ করে চলেছি। এই কাজে পাশে পেয়েছি আমার স্ত্রী সহ একদল ডাক্তারের স্বেচ্ছাশ্রম। তাদের সবার কাছে আমি কৃতজ্ঞ। প্রসঙ্গত ডাঃ কবিতা চৌধুরী হলেন তার যোগ্য সহধর্মীনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *