প্রশাসন

আধার ও রেশন কার্ড এর লিংক হচ্ছে গুসকরায়

আধার ও র‍্যাশন কার্ডের লিঙ্ক হচ্ছে গুসকরায়

জ্যোতি প্রকাশ মুখার্জ্জী

     'এক দেশ, এক রেশন কার্ড'- উদ্দেশ্য কর্মসূত্রে যারা অস্হায়ী ভাবে পরিবার সহ অন্য রাজ্যে বাস করে বিশেষ করে পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে রেশন পাওয়া থেকে বঞ্চিত না হয় তার জন্য এই ব্যবস্থার প্রচলন করা। এই ব্যবস্হার প্রথম পদক্ষেপ হলো র‍্যাশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডের 'লিঙ্ক' করা। অনেকের মতে এর ফলে অনেক ভুয়ো র‍্যাশন কার্ড বাতিল হবে। কারও কারও মতে যেহেতু প্যান কার্ড ও আধার কার্ডের মধ্যেও 'লিঙ্ক' করা হচ্ছে সেক্ষেত্রে সহজেই রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে বা অসদুপায়ে পাওয়া অনেকের বিশেষ সুবিধা প্রাপ্ত র‍্যাশন কার্ড বাতিল হতে পারে। নীতিগত ভাবে প্রস্তাব মেনে নিলেও সবার আধার কার্ড হয়নি এই অজুহাতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার প্রথমে রাজী না হলেও সুপ্রিম কোর্টের 'ধমক' খেয়ে শেষ পর্যন্ত র‍্যাশন কার্ড ও আধার কার্ডের লিঙ্ক করতে সম্মত হয়। নিজের ওয়ার্ডের সমস্ত মানুষ যাতে দুটি কার্ডের মধ্যে লিঙ্ক করাতে পারে তার জন্য সক্রিয়তা দেখালো গুসকরা পৌরসভার ১৪ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল নেত্রী সাধনা কোনার।
         আটটা পাড়া নিয়ে গড়ে ওঠা সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের কিছু বাসিন্দা র‍্যাশন ডিলারের কাছে লিঙ্কের কাজটা করলেও বিভিন্ন কারণে অনেকের হয়নি। তাদের জন্য পুরসভার পক্ষ থেকে আলুটিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি ক্যাম্পের ব্যবস্থা করা হয়। গত ২ রা আগষ্ট থেকে শুরু হওয়া চারদিন ব্যাপী এই ক্যাম্পে সাধনা দেবী নিজে উপস্থিত থেকে লিঙ্কের কাজ করতে কর্তৃপক্ষের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। তিনি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ত‍ৃণমূল কর্মী সেখ মোজাম্মেল, আজাদ মল্লিক প্রমুখ।সাধনা দেবী সহ অন্যান্য ত‍ৃণমূল কর্মীদের ভূমিকায় এলাকাবাসীরা খুব খুশি। এছাড়াও ৭ নং ওয়ার্ডে আয়োজিত অনুরূপ একটি ক্যাম্পে তৃণমূল কংগ্রেসের বুথ সভাপতি প্রদীপ কোনার, যুব সভাপতি সৌগত গুপ্ত সহ অন্যান্য তৃণমূল কর্মীরা এলাকাবাসীদের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।
         সাধনা দেবী বলেন - এই ওয়ার্ডের অধিকাংশ মানুষ গরীব, শ্রমজীবী। অজ্ঞতা বা অন্য কোনো কারণে তাদের অনেকের পক্ষে র‍্যাশন ও আধার কার্ডের লিঙ্ক করা হয়নি। শুধুমাত্র এই কারণে কোনো গরীব মানুষ যাতে র‍্যাশন পাওয়া থেকে বঞ্চিত না হয় তার জন্য শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি কুশল মুখার্জ্জী আমাদের পরামর্শ দেন। তার পরামর্শ মত আমরা সতর্ক থাকি এবং দলমত নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষের সংশ্লিষ্ট দুটি কার্ডের যাতে লিঙ্ক সম্পন্ন হয় তার জন্য সহযোগিতা করি। 
       কুশল বাবু বলেন শুধু এই ওয়ার্ডে নয় যে কোনো সেবামূলক কাজে প্রতিটি ওয়ার্ডের তৃণমূল কর্মীরা সতর্ক আছে। শহর সভাপতি হিসাবে এদের জন্য আমি গর্বিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *