হাইকোর্ট সংবাদ

‘এত দ্রুততা কিসের?’ রাখাল গ্রেপ্তারে রিপোর্ট তলব ডিভিশন বেঞ্চের

‘এত দ্রুততা কিসের?’ রাখাল গ্রেপ্তারে রিপোর্ট তলব ডিভিশন বেঞ্চের

মোল্লা জসিমউদ্দিন টিপু  
‘হাইকোর্ট এর নির্দেশের পরেও কিভাবে রাখাল বেরা কে গ্রেপ্তার করা হলো? ‘ রাখাল গ্রেপ্তারে এত দ্রুততা কিসের?  এই বিধ নানান প্রশ্নবাণে রাজ্য কে বিঁধলো কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপব্রত চক্রবর্তী এবং বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ। কোন অফিসার গ্রেপ্তার করেছে তার নামও জানতে চেয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ। আজ অর্থাৎ বুধবারের মধ্যেই রাখাল বেরা গ্রেপ্তারের সমস্ত তথ্য প্রমাণ রাজ্য কে জানাতে হবে আদালত কে।সোমবার কলকাতা হাইকোর্ট রাখাল বেরা কে জামিন মঞ্জুর করে থাকে। পাশাপাশি এও জানায় কোন এফআইআর রুজু করতে গেলে আদালতের নির্দেশ নিতে হবে পুলিশ কে।তাহলে সেই নির্দেশ কেন পালন করেনি রাজ্য? এই প্রশ্ন তুলেছেন ডিভিশন বেঞ্চের দুই বিচারপতি। যদিও রাজ্যের তরফে সোমবারই নিম্ন আদালতের নির্দেশে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে দাবি করা হয়। তখন ডিভিশন বেঞ্চ বলে – ‘তাহলে হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ কে কেন নিম্ন আদালতের নির্দেশের কথা জানানো হয়নি’? শুধু তাই নয় ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে – ‘ আমরা যখন সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশিকার উপর আপিল পিটিশন গ্রহণ করেছি।তাহলে এত দ্রুততা কিসের রাখাল বেরা কে গ্রেপ্তারে?’ উল্লেখ্য,  সোমবার কলকাতা হাইকোর্ট এর সিঙ্গেল বেঞ্চে রাখাল বেরার জামিন মঞ্জুর হয়। পাশাপাশি কোন মামলা রুজু করতে গেলে আদালতের অনুমতি আবশ্যিক বলে জানানো হয়। এই নির্দেশের বিরুদ্ধে মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের দারস্থ হয় রাজ্য। ডিভিশন বেঞ্চের শুনানির আগেই গত ১৫ জুন তমলুকের এক মামলার গ্রেপ্তার করা হয় রাখাল বেরা কে। ডিভিশন বেঞ্চের প্রশ্ন সিঙ্গেল বেঞ্চে জামিনের শুনানির সময় রাজ্য কেন নিম্ন আদালতের গ্রেপ্তারির নির্দেশ গোপন করলো? আর যখন ডিভিশন বেঞ্চের বিচারধীন এই মামলাটি সেখানে কেন পুলিশ অতি সক্রিয়তা হয়ে গ্রেপ্তার করলো।গ্রেপ্তার করা পুলিশ অফিসারের নাম সহ গ্রেপ্তারির সমস্ত তথ্য আজ অর্থাৎ রাজ্য  কে জানাতে বলেছে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী এবং বিচারপতি শুভাশিস দাশগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ। এখন রাজ্য কি প্রতুত্তরে জানায় তার দিকে তাকিয়ে অনেকেই। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *