পুলিশ

রক্তাক্ত লাশ হতে রাজি,তবুও গাড়ি চালাবার সময় কথা বলা চাই….

পারিজাত মোল্লা, আমিরুল ইসলাম,

; লাগাদার জনসচেতনতা মূলক প্রচারেও মানুষের হুঁশ নেই।রক্তাক্ত লাশ হতেও রাজি, তবুও গাড়ি চালাবার সময় কথা বলা চাই, চাই।লাশের সামনে  আত্মীয়পরিজনদের থানার সামনে বুকভাঙা কান্নাতেও আমরা সচেতন নই।হ্যাঁ,  ফোনে কথা বলতে গিয়ে মুখোমুখি এক গাড়ির সাথে সংঘর্ষতে প্রাণ গেল এক মোটরসাইকেল চালকের।সাথে বাইক আরোহীর শারীরিক অবস্থা আশংকাজনক। ঘটনা টি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোট থানার নপাড়া – দাসগড় এলাকায়।সোমবার মঙ্গলকোটে দাসগরে লরির সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ হারাল মোটরসাইকেল চালক, ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য।এদিন সকালবেলায়  পৃথক ঘটনায় নতুনহাট থেকে বর্ধমান যাওয়ার পথে, ভাতারের আলিগড়ের কাছে নয়নজুলিতে যাত্রীবোঝাই বাস পড়ে গেলে জখম হয় ৫ জন।এরপর বেলা সাড়ে আটটা নাগাদ জঙ্গিপুর থেকে কলকাতা যাওয়ার পথে একটি বাস মঙ্গলকোটের মহাতুবায় বাসস্ট্যান্ডের কাছে ডাম্পারের পেছনে সামনে ধাক্কা মারলে  চালক সহ জখম  তিনজন জন।এরপর সকাল পৌনে এগারটা নাগাদ এক বাইকচালক বাইকে করে। এক আরোহীকে পিছনে  চাপিয়ে, নতুনহাটের দিকে ফিরছিল। অপরদিকে নতুনহাট থেকে আসা একটি ৪০৭ লরি বাইকটিকে মুখোমুখি ধাক্কা মারায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বাইক চালকের। জখম আরোহী। ঘটনাটি মঙ্গলকোটের দাসগরের কাছে।মৃত গাড়ি চালকের নাম প্রণব সাধু (৪৫) বাড়ি নতুনহাটে। জখম বাবু থান্ডার কে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে মঙ্গলকোট ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে। অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে পাঠানো হয় বর্ধমান মেডিকেল কলেজে।এই ঘটনার জেরে বেশ কিছুক্ষণ বাদশাহী সড়ক অবরোধ করে থাকে এলাকাবাসীরা। পরে মঙ্গলকোট থানার পুলিশ এসে অবরোধ তোলে।লরিটি মোটর সাইকেল কে ধাক্কা মেরে সজোরে ধাক্কা মারে ইলেকট্রিক পোলে। গোটা দাসগর গ্রাম বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে এই মুহূর্তে।সমগ্র ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় ।মঙ্গলকোট আইসি পিন্টু মুখার্জি বলেন – ” গাড়ি চালাবার সময়  ফোনে কথা বললে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা প্রবল থাকে।আমরা বারবার প্রচার চালাচ্ছি পথ নিরাপত্তা নিয়ে “। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *