পুলিশ

মঙ্গলকোটে গাড়ি ছিনতাইয়ে যুক্ত ‘ফেরার’ অপরাধী

মঙ্গলকোটে গাড়ি ছিনতাইয়ে যুক্ত ‘ফেরার’ অপরাধী

মোল্লা জসিমউদ্দিন,  

;
একমুহূর্তে পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোট থানায় চারদিনের পুলিশি হেফাজতে রয়েছে গাড়ি ছিনতাইয়ে অভিযুক্ত তিনজন।এই মামলার তদন্তকারী পুলিশ অফিসার প্রণব নন্দী ইতিমধ্যেই এই ছিনতাইয়ের ঘটনায় অনেকখানি তদন্তে অগ্রগতি ঘটিয়েছেন। এটি শুধু মঙ্গলকোটের থানা ভিক্তিক স্থানীয় কোন অপরাধদলের কাজ নয়, এই ঘটনায় আন্তঃরাজ্য পাচারকারীদের বিভিন্ন সূত্র মিলেছে বলে দাবি।গত বৃহস্পতিবার বর্ধমান শহর থেকে এক তরুণী এক চারচাকা গাড়ি ভাড়ার নাম করে মঙ্গলকোটের ঝিলু মোড়ে গাড়ি চালক কে মারধর করে গাড়ি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছিল তিনজন যুবকের সহযোগিতায়।বর্ধমান শহরের দুবরাজদিঘির বাসিন্দা সেখ সাজু এই ঘটনায় গত শনিবার মঙ্গলকোট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে থাকে। মঙ্গলকোট থানার আইসি পিন্টু মুখার্জির তত্ত্বাবধানে পুলিশ এই ঘটনার চব্বিশ ঘন্টার মধ্যেই তিনজন অভিযুক্তকে পাকরাও করে।গত রবিবার কাটোয়া মহকুমা আদালতে এসিজেম এজলাসে পেশ করা হলে ধৃতদের চারদিনের পুলিশি হেফাজতে থাকার নির্দেশিকা জারি হয়।প্রাথমিক তদন্তে ধৃতদের মধ্যে নূর হাসমত মির্জা ওরফে ভূটান এবং রানা মেটের বাড়ি মঙ্গলকোটেরই ছিনতাইয়ের ঘটনাস্থল ঝিলু গ্রামে হলেও তৃতীয় ব্যক্তি অর্থাৎ মির আমীর আলী ওরফে জুয়েল আলীর বাড়ি জানা যায় পূর্ব বর্ধমান জেলার সীমান্তবর্তী বীরভূমের নানুরের মুরুড্ডি গ্রামে।তবে পুলিশি হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলাতে জুয়েল আলীর আসল বাড়ি জানা যায় মুর্শিদাবাদের বড়ঞা থানা এলাকায়।মুর্শিদাবাদ ও বীরভূম জেলা পুলিশের সাথে মঙ্গলকোট থানার পুলিশ কথা বলে নানান তথ্য পায়। শুধু তাই নয় পুলিশি হেফাজতে থাকা জুয়েল আলী মুর্শিদাবাদের বড়ঞা থানায় বেআইনী অস্ত্র মামলায় ‘ফেরার’ রয়েছে। পাশাপাশি বীরভূমের বোলপুর থানায় ছিনতাই মামলায় রয়েছে ওয়ারেন্ট। চক্ষুচড়ক গাছ মঙ্গলকোট থানার পুলিশের! সেইসাথে মুম্বাইয়ে একসময় থাকতো এদের মধ্যে দুজন। তাই মঙ্গলকোটের ঝিলু মোড়ে গত বৃহস্পতিবার রাতের গাড়ি ছিনতাইয়ের ঘটনায় যোগ রয়েছে আন্তঃরাজ্য পাচারকারীদের বলে মনে করছে মঙ্গলকোট থানার পুলিশ। ছিনতাই হওয়া গাড়িটি সম্ভবত মঙ্গলকোট – নানুর সীমান্তবর্তী এলাকায় থাকতে পারে বলে মনে করছেন তদন্তকারী পুলিশ অফিসার প্রণব নন্দী।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *