প্রশাসন

স্বনির্ভর রাজ্য বিশ্বভারতী সাথে যৌথভাবে কাজ করবেনা, পর্যটনমন্ত্রী

খায়রুল আনাম, ৪ জুলাই,

পর্যটন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেনের  স্পষ্ট উক্তি 
স্বনির্ভর রাজ্য বিশ্বভারতীর  সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করবে না
       
রাজ্যের মধ্যে থাকা একমাত্র কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়  শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে রাজ্য সরকারের বরাবর একটা দূরত্ব রয়ে গিয়েছে। বিশ্বভারতী বিশ্ব বিদ্যালয়ের আচার্যের পদে থাকেন দেশের প্রধানমন্ত্রী আর রাষ্ট্রপতি  থাকেন পরিদর্শকের পদে। রাজ্যের রাজ্যপাল হলেন বিশ্বভারতীর রেক্টর। রাজ্য পুলিশ প্রশাসনের সমস্ত সহযোগিতা অবশ্য বিশ্বভারতীকে নিতে হয়। অতীতে কোনও রাজ্য সরকার অবশ্য বিশ্বভারতীর অভ্যন্তরিন বিষয়ে হস্তক্ষেপ করেনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরে, তিনি রাজ্যের মধ্যে থাকা  বিশ্বভারতীর সাথে রাজ্য সরকারের সরাসরি সম্পর্ক গড়ে তোলার প্রয়াসী হতেই, বিশ্বভারতীর বিভিন্ন মহলে তা নিয়ে জোর চর্চা শুরু  হয়ে যায়। মুখ্যমন্ত্রী বিশ্বভারতীতে আসার ব্যাপারে  আগ্রহ প্রকাশ করার পরিপ্রেক্ষিতে,  তাঁকে বিশ্বভারতীতে আমন্ত্রণও জানানো হয়।  সেই আমন্ত্রণে তিনি শান্তিনিকেতনের লিপিকা প্রেক্ষাগৃহে এসে সরাসরি জানিয়ে দেন যে, বিশ্বভারতী চাইলে রাজ্য সরকার শান্তিনিকেতনের রবীন্দ্রভবন থেকে চুরি যাওয়া নোবেল পদক উদ্ধার করে দেবে। এই তদন্ত আগেই বন্ধ করে দিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। যদিও  নোবেল পদক চুরির তদন্তভার রাজ্য সরকার পায়নি। পরবর্তীতে রাজ্য সরকার শান্তিনিকেতনের ভিতর দিয়ে  শ্রীনিকেতন যাওয়ার যে রাস্তা রাজ্য সরকারকে হস্তান্তর করেছিলো, তা ফিরিয়েও নেয়।  রাজ্য  সরকারের  সঙ্গে বিশ্বভারতী যৌথভাবে শান্তিনিকেতনের পৌষমেলা করবে বলেও সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু শেষ মুহূর্তে করোনার কারণে পৌষমেলাই বন্ধ হয়ে যায়।  একটা সময় বিশ্বভারতীকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রক ও রাজ্য পর্যটন দফতর  যৌথভাবে কর্মসূচি নেওয়ার ব্যাপারে আলোচনাও করে। কিন্তু  পরবর্তীতে এই কর্মসূচি আর বাস্তবায়িত হয়নি এবং আলোচনাও বন্ধ হয়ে যায়। এবার লকডাউন শিথিল হতেই, রাজ্যের পর্যটন শিল্পের মানোন্নয়ন ঘটিয়ে পর্যটকদের আকৃষ্ট করে,  অর্থনৈতিক দিশা খুঁজতে তৎপর হয়েছে রাজ্য পর্যটন দফতর।  আর তাতে  শান্তিনিকেতন, তারাপীঠ, জয়দেব-কেন্দুলি-সহ  অন্যান্য আকর্ষণীয় স্থান ও পঞ্চ পীঠের জেলা বীরভূমকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা শুরু হয়েছে। আর তাই লকডাউন শিথিল হতেই ৩ জুলাই জেলার তারাপীঠে পৌঁছে  রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী  ইন্দ্রনীল সেন এখানে ৫ কোটি ১৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ২০টি কটেজ সমৃদ্ধ  ‘তারাবিতান’ তৈরীর কথা ঘোষণা করেন। এবং ছ’ মাসের মধ্যে এই কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে বলে তিনি জানিয়ে  দিয়েছেন।       বীরভূমের পর্যটন শিল্পের উপরে জোর দিতে রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী  ইন্দ্রনীল সেন তাঁর এই সফরকালে এবার ঘুরে দেখতে শুরু করলেন জেলার অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্রগুলি। এ ব্যাপারে তিনি জানান  দিঘা, মন্দারমণি, শান্তিনিকেতন, উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং একটা সময় পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হলেও,  করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আসতেই তা পুনরায় বন্ধ করে দিতে হওয়ায় পর্যটন শিল্প যথেষ্ট মার খেয়েছে।  সেই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠে পর্যটন শিল্পকে চাঙ্গা করার প্রয়াস চালানো হচ্ছে। শান্তিনিকেতনের বল্লভপুরের রাঙাবিতানের আদলেই তারাপীঠের  তারাবিতান-এর কাজ ছ’ মাসের মধ্যে শেষ করে দেওয়া হবে।  বল্লভপুরে দ্বিতীয় রাঙাবিতান তৈরীর পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে। জয়দেব-কেন্দুলির বাউল অ্যাকাদেমির কাজ বিগত ছ’বছরেও শেষ করা যায়নি। এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  জেলাশাসককে আগামী ছ’মাসের মধ্যে  বাউল অ্যাকাদেমির কাজ শেষ করার নির্দেশও দেওয়া হয়। এখানে হস্তশিল্প, কুটির শিল্পের খোলা বাজারও তৈরী হবে। বিশ্বভারতীর সঙ্গে যৌথভাবে রাজ্য পর্যটন দফতর আর কোনও কর্মসূচি নেবে কী না, এ ব্যাপারে রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেনের মত জানতে চাইলে তিনি স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেন, পর্যটন শিল্প নিয়ে ২০১৮ সালে রাজ্য পর্যটন দফতর ও বিশ্বভারতীর মধ্যে একটি যৌথ বৈঠক হয়েছিলো। তারপর আর কোনও আলোচনা  হয়নি।  স্বনির্ভর রাজ্য। তাই বিশ্বভারতীর সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করার কোনও পরিকল্পনা তাঁদের নেই বলে এদিন রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিলেন। বিশ্বভারতীর সঙ্গে রাজ্য সরকার যে দূরত্ব রেখে চলবে, তা রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেনের  মন্তব্যে স্পষ্ট হয়ে গেল বলেই মনে করা হচ্ছে  ।।    

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *