হাইকোর্ট সংবাদ

দেবাঞ্জন – সনাতন যেন ‘বড় মিয়া ছোট মিয়া’র অমিতাভ – গোবিন্দা

ধৃত প্রতারক সনাতন আদৌও কি আইনজীবী, খোঁজে বার এসোসিয়েশন

মোল্লা জসিমউদ্দিন টিপু,


সিনেমার পর্দায় অমিতাভ  এবং গোবিন্দার ‘বড় মিঁয়া ছোট মিঁয়া ‘ সিনেমাটি কমবেশি অনেকেই দেখেছেন।সেখানে ডাবল রোলে অমিতাভ – গোবিন্দা একজায়গায় প্রতারক যুগল।ঠিক তেমনি বাংলায় যখন ভুয়ো আইএএস দেবাঞ্জন দেব কে নিয়ে মনে করা হচ্ছিল ‘এত বড় প্রতারক বাংলায় আর নেই!’ ঠিক তখনি পর্দাফাস হলো সনাতন রায় চৌধুরী নামে আরেক ‘গুনধর’ প্রতারকের।কি নন ইনি? কখনো কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই এর কৌঁসুলি,  আবার কখনো বা রাজ্য সরকারের স্ট্যান্ডিং কাউন্সিলের মেম্বার ইনি।তাছাড়া সরকারি কুটনৈতিকবিদও বটে।বিদেশের মাটিতে দেশের প্রধানমন্ত্রীর পাশে সম্মেলনে বক্তৃতা দিতে দেখা গেছে তাকে।দেবাঞ্জন দেবের জালিয়াতির বলয় ছিল মূলত বাংলা কেন্দ্রিক। আর সনাতন রায় চৌধুরী রাজ্য থেকে দেশ, দেশ থেকে বিদেশ পর্যন্ত। ২০১৩ সালে জাপানে ইন্দো জাপান বাণিজ্যিক সম্মেলনে বক্তৃতা দিয়েছেন।আবার ২০১৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্রিকস সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর পাশে কুটনৈতিকবিদ রয়েছেন উজ্জ্বল উপস্থিতিতে। মুর্শিদাবাদের বহরমপুর এলাকায় খাগড়া তেলঘড়িয়ার বাসিন্দা এই প্রতারক ২০০৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে দাঁড়িয়েও ছিলেন।যাইহোক সর্বত্রই এই প্রতারক সনাতন রায় চৌধুরী নিজেকে কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী হিসাবে দাবি করছেন। তাই সনাতন আদৌও কি আইনজীবী তা খতিয়ে দেখতে চায় হাইকোর্টের বার এসোসিয়েশন। হাইকোর্ট বার এসোসিয়েশন এর মেম্বারশিপ রয়েছে এই প্রতারকের।বার এসোসিয়েশন এর মেম্বারশিপ পেতে গেলে বার কাউন্সিল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গলের নথিভুক্ত থাকতে হয়।এক্ষেত্রে ২০০০ সালে ১২ আগস্ট বার কাউন্সিল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গলে যে আইনী ডিগ্রির শংসাপত্র জমা দিয়েছেন তা কি আসল?. এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে কলকাতা হাইকোর্টের বার এসোসিয়েশনের মধ্যে।ইতিমধ্যেই শারীরিক অসুস্থতার জন্য বার এসোসিয়েশন এর সভাপতি অশোক কুমার ঢনঢনিয়া ব্যাঙ্গালোরে গিয়েছেন। বার এসোসিয়েশন এর বাকিরা বার কাউন্সিল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গলের নথিভুক্ত সনাতন রায় চৌধুরীর ডিগ্রি টি যাচাইয়ের জন্য ছোটাছুটি শুরু করে দিয়েছে বলে জানা গেছে। ” একজন প্রতারকের জন্য হাইকোর্টের বার এসোসিয়েশন কেন কলুষিত হবে, তা নিয়ে সজাগ আইনজীবীমহল” বলে জানিয়েছেন সংবিধান বিশেষজ্ঞ আইনজীবী বৈদূর্য ঘোষাল। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *