ক্রীড়া সংস্কৃতি

হে অতীত তুমি বধির কেন?

তোমার প্রতি আমার ভালবাসার সশ্রদ্ধ নিবেদন । যদি ভালো লাগে পড় ,অন‍্যথায় ছেঁড়া কাগজ ভেবে ফেলে দিও ।

হে অতীত ,তুমি বধির কেন ?

হে অতীত,ফিরিয়ে দাও আমার কৈশোর ,ফিরিয়ে দাও আমার বসন্তের নবরাগ, ফিরিয়ে দাও আমার প্রিয়াকে । জানি তুমি বধির , নিষ্ঠুর বটে । সেই বসন্তের নবরাগে ফিরে যেতে চাই । প্রিয়াকে দেখতে খুব ইচ্ছা করে । কালো ছায়া হয়ে প্রাচীরের মতো কেন তুমি দাঁড়িয়ে থাক আমার সামনে ? মহাকালের পথ ধরে আমি ছুটে চলেছি দূরন্ত গতিতে । দূর্গম পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে ,উত্তাল সমুদ্র পার হয়ে আমি ফিরে যাচ্ছি আমার বসন্তের নবরাগে ,আমার প্রিয়ার সঙ্গে দেখা করতে । হে অতীত ,তোমার দূর্গের দরজা খোল । শুধু একবার আমার কথা শোন , অন‍্যথায় তোমার মন্দিরের সোপান তলে আমি মাথা ঠুকে মরি । তুমি কি শুনতে পাও না আমার বুক ফাটা কান্না ? তোমার দূর্গে আমার প্রিয়াকে কেন বন্দী করে রেখেছ একা ? খুলে দাও তোমার দূর্গের দরজা ‌। একবার দেখি তার মুখ ‌।
হঠাৎ দূর্গের দরজা খুলে গেল ‌। দেখি তার দু’চোখে বহিছে অশ্রু ধারা । সে কাছে আসার জন্যে দু’হাত বাড়িয়ে দিল আমার দিকে । আমি তাকে ধরতে গেলাম, বাতাসে কোথায় সে মিলিয়ে গেল ! শুধু তার কান্না শুনতে পেলাম । অন্ধকারে আমি পথ হারালাম । যখন অন্ধকার কেটে গেল ,আমি চোখ মেলে দেখি সে অনেক দূরে । কি সাহস আমি তাকে উদ্ধার করি ! খাঁচার বন্দী পাখির মতো আমি যে সময়ের হাতে বন্দী । রজনীগন্ধার মতো শুধু তার একরাশ স্মৃতি আমার কাছে ।
যে ফুল বনে নীরবে ফোটে ,সে নীরবে ঝরে । কে তার খোঁজ করে ? নীরবে তার স্মৃতি বয়ে আজ আমি বড় ক্লান্ত । যদি কখনও তার সঙ্গে দেখা হয় ,পূর্ণিমার চাঁদের মতো ফিরে পাব তাকে । মুখের কাছে মুখ নিয়ে শুধু দেখব তাকে। ফিরে পাব আমার কৈশোর ,আমার বসন্তের নবরাগ । আমার পাগলামি শুধু তার জন‍্যে । কেন এতো ভয় ! আমি তো তার সঙ্গে আছি । ওই দেখ,নদীর ঢেউ বয়ে চলেছে । সে আমাদের ভালোবাসার সাক্ষী ‌। অতীত পারে না আমার কাছ থেকে তাকে কেড়ে নিতে ‌। মহাকালের পথ ধরে আমি খুঁজে চলেছি তাকে । শুধু তার জন‍্যে । আমি শুধু তার ‌।

সুবল সরদার
মগরাহাট
দক্ষিণ ২৪ পরগনা ।
তাং ০৫ ০৭ ২০২১
ফোন ৯৬০৯০৫৮৫২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *