ক্রীড়া সংস্কৃতি

তালডাংরায় হুল দিবস পালন

সাধন মন্ডল,

যথাযোগ্য মর্যাদায় হুল দিবস পালিত হল সারা রাজ্য জুড়ে। বাঁকুড়া জেলাতেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের আদিবাসী সংস্কৃতি দপ্তর এর উদ্যোগে বাঁকুড়ায় দুটি অনুষ্ঠানে সিধু কানুর বিপ্লবের কাহিনী তুলে ধরে হুল দিবস উদযাপিত হল। একটি তালডাংরা বিধানসভার চেঁচুরিয়া ইকোপার্কে অন্যটি হিড়বাঁধ ব্লকের ব্লক অফিস সংলগ্ন ফুটবল ময়দানে। এছাড়া জঙ্গলমহলের রায়পুর ব্লকের ব্কশিবাজারে, জঙ্গলমহল কালী পূজা কমিটির উদ্যোগে কপাট কাটা মোড়ে, রায়পুর ব্লক প্রশাসনের উদ্যোগে সোনাগাড়া সিধু কানু নাগারে, সারেঙ্গার সারেঙ্গা বাজারে, রায়পুর সবুজ বাজারে সিধু কানুর মূর্তিতে মাল্যদান করে তাদের স্মরণ করা হয়। জঙ্গলমহল কালী পূজা কমিটির উদ্যোগে কপাট কাটা মোড়ে সিধু কানুর মূর্তি উদ্বোধন করেন বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্মু। উপস্থিত ছিলেন রায়পুর পঞ্চায়েত সমিতির সহ-সভাপতি রাজকুমার সিংহ, ফুলকুসমা গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান অরুণ কুমার গরাই, সহ বিশিষ্ট মানুষজন। সোনাগাড়ায় সিধু কানুর মূর্তিতে মাল্যদান করেন রায়পুর সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক রঞ্জন সর্দার। উল্লেখ্য মূর্তি স্থাপনে ব্লক প্রশাসনের ভূমিকা কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এলাকার মানুষ। অন্যদিকে তালডাংরার চেঁচুরিয়া ইকো পার্কে হুল দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদিকা অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দোপাধ্যায়, বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্মু, তালডাংরা বিধায়ক অরূপ চক্রবর্তী, বাঁকুড়া জেলা পুলিশ সুপার ধৃতিমান সরকার, বাঁকুড়া জেলা পরিষদের পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ শিবাজী ব্যানার্জি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গনেশ বিশ্বাস, খাতড়া মহকুমা পুলিশ আধিকারিক কাশীনাথ মিস্ত্রি, তালডাংরা ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব, তালডাংরা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি অনুসূয়া রায় সহ আদিবাসী সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব। এখানে অনুষ্ঠানে আদিবাসী ভাষায় শুভেচ্ছা জানিয়ে উপস্থিত দর্শকদের মন জয় করে নেন সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন আমার বাড়ি কলকাতায় হলেও আমি বাঁকুড়ার মেয়ে, আমি তোমাদের ঘরের মেয়ে তোমাদের সেবা করার জন্য আমি বাঁকুড়ায় এসেছি তোমাদের ভালোবাসায় আমি আপ্লুত বাঁকুড়া আমার প্রাণ। হুল দিবসের তাৎপর্য বিশ্লেষণ করে বক্তব্য রাখেন বিধায়ক অরূপ চক্রবর্তী, সভাধিপতি মৃত্যুঞ্জয় মুর্মু, পুলিশ সুপার ধৃতিমান সরকার সহ বিশিষ্টরা। এই মঞ্চ থেকেই আটটি ব্লক এলাকার মাঝি বাবা ও নাইকাদের সম্বর্ধনা জানানো হয়। সভা পরিচালনা করেন বিশিষ্ট শিক্ষক অরুন কুমার মাণ্ডী। সভায় উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করেন পন্ডিত রঘুনাথ মুর্মু আবাসিক বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা তারা আদিবাসী ভাষায় রবীন্দ্র সংগীত পরিবেশন করেন উপস্থিত দর্শকদের মন জয় করে নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *