প্রশাসন

বেতালভট্টের ১৩৩ তম জন্মদিন পালন কাটোয়ায়

‘কবিশেখর’ কালিদাস রায়ের জন্মদিন পালন 

দীপঙ্কর চক্রবর্তী,
মঙ্গলবার ‘কবিশেখর’ কালিদাস রায়ের জন্ম দিবস পালন হলো কাটোয়ায়।কবিশেখর কালিদাস রায়ের জন্ম ১৮৮৯ সালে ২২ শে জুন কাটোয়া ব্লকের করুই গ্রামে।১৯০৭সালে কাশিমবাজারের খাগড়া এল এম এম স্কুল থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়েছিলেন।ফিলজফিতে এম এ করেছিলেন।স্কটিশচার্চ কলেজ থেকে।ভবানীপুর মিত্রইনস্টিটিউশনে ২২ বছর শিক্ষকতা করতেন।১৯২৮ সালে তিনি গড়ে তোলেন ‘রসচক্র সাহিত্য সংসদ’।এই আসর তার বাড়িতেই বসত।দিকপাল লেখকরা আসতেন সেসময় ।তাঁকে ১৯২০ সালে বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ(রংপুর) থেকে কবিশেখর উপাধি দেওয়া হয়।১৯৬৩ সালে পান আনন্দপুরস্কার।১৯৫৩ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জগত্তারিনী স্বর্নপদক পান।১৯৬৮ সালে পান রবীন্দ্রপুরস্কার।১৯৭০ সালে বিশ্বভারতী দেশিকোত্তম দেয়।১৯৭২  ডি লিট দেয় রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়।১৯৭৬ সালে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় তাকে মরনোত্তর ডি লিট সম্মান প্রদান করেন।ডঃ প্রতাপচন্দ্র চন্দ্র,সিদ্ধার্থশংঙ্কর রায়,সোমনাথ চ্যাটার্জী,কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যাক্তিরা কালিদাসের সুযোগ্য ছাত্র ছিল।কালিদাস বহু বই, গান রচনা করেছেন।তার কাব্যগ্রন্হ ৩০ টি।তিনি ‘বেতালভট্ট’ ছদ্মনামে লিখতেন।তার লেখা বইগুলো হল ব্রজরেনু,কুন্দ,বৈকালী,পর্নপুট,কিশলয়,ধাতুমঙ্গল,গাথান্জলী,চিত্তচিতা,হৈমন্তী,গীতালহরী,মহাভরত,রসকদম,,আহরনী প্রভৃতি।১৯৭৫ সালের ২৫ অক্টোবর কলকাতার বাড়ীতে দেহ ত্যাগ করেন।পরের বছর থেকেই করুই গ্রামে তার জন্ম ভিটায় কালিদাস ওয়েলফেয়ার সোসাইটি কবির জন্মদিবস পালন করে আসছে।বর্তমানে কাটোয়া স্টেডিয়াম পাড়ায় প্রখ্যাত কবি গুরুপ্রসাদ যশ তার নিজের উদ্যোগে কবির জন্ম দিবস গত ১০ বছর এখানে মহা সমারোহের সাথে পালন করে চলেছেন।মঙ্গলবার কালিদাস রায়ের ১৩৩ তম জন্ম দিবস ঠিক এভাবেই করোনা বিধি মেনে অল্প মানুষের উপস্হিতিতে পালিত হল।কবি গুরুপ্রসাদ যশ জানান -“কবির জন্মদিনকে স্মরন করে প্রতিবছর কবিশেখর নামে একটি পত্রিকা প্রকাশ করা হল।এই সংখ্যায় সারা রাজ্যের নামকরা লেখকরা কবিতা,কবিকে নিয়ে লেখা লেখেন।কালিদাস সম্মাণ দেওয়া হয় বিভিন্ন কবি লেখকদের।কবির জীবন নিয়ে আলোচনা হয়”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *