হাইকোর্ট সংবাদ

নারদায় নাম বাতিলের আর্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আইনমন্ত্রী

নারদায় নাম বাতিলের আর্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মলয় ঘটক 

মোল্লা জসিমউদ্দিন টিপু,


এবার নাম বাতিলের আর্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দরবারে রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক। রাজ্যে বহু চর্চিত নারদা মামলায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই এই মামলায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, লোকসভার সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় সহ রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটকদের মামলায় পক্ষভুক্ত করে।যা নিয়ে ‘ বার কাউন্সিল  অফ ওয়েস্ট বেঙ্গল’ এর তরফে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। বার কাউন্সিল অফ ওয়েস্ট বেঙ্গলের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটির পদাধিকারী আনসার মন্ডল জানিয়েছেন – ‘ এই তিনজনই আইনজীবী হিসাবে বার কাউন্সিলের নথিভুক্ত। এই মামলায় পক্ষভুক্ত করার আগে বার কাউন্সিল কে লিখিতভাবে জানাতে হত।রাতের অন্ধকারে শুনানি চালিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনের সূযোগ না দিয়ে এক্তিয়ারের বাইরে কাজ করেছে আদালত। যা নিয়ে আমরা ধারাবাহিক প্রতিবাদ জানাচ্ছি”। গত ১৭ মে নারদা মামলায় অভিযুক্ত হিসাবে রাজ্যের দুই মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি, ফিরহাদ হাকিম,  কামারহাটি কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র সহ কলকাতা পুরসভার প্রাক্তন মেয়র শোভনদেব চট্টপাধ্যায় কে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। ওইদিনই গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে সিবিআইয়ের দপ্তর নিজাম প্যালেসে হাজির হয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, লোকসভার সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি ব্যাংকশাল আদালতে সিবিআই এজলাসে বিচার চলাকালীন আদালত চত্বরে ছিলেন রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক। সিবিআই গ্রেপ্তার পরবর্তীতে এঁদের তদন্তকারী সংস্থার অফিস সহ সংশ্লিষ্ট আদালতে হাজির হওয়া নিয়ে প্রভাবশালী তত্ত্বর অভিযোগ আনে।সেখানে এই তিনজন কে পক্ষভুক্ত করা হয়। নারদা মামলায় স্থানান্তরিত করার আবেদন নিয়ে বৃহত্তর বেঞ্চে শুনানির নির্ধারিত সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মলয় ঘটকদের হলফনামা গ্রহণ করেনি হাইকোর্ট। তাই নারদায় নাম বাতিলের আর্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে গেলেন মলয় ঘটক। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *