পুলিশ

পিকের নাম ভাঁড়িয়ে পাঞ্জাবে ৫ কোটির প্রতারণা, ধৃত ৩

পিকের নাম ভাঁড়িয়ে পাঞ্জাবে ৫ কোটির প্রতারণা, ধৃত ৩

গোপাল দেবনাথ, অতিথি সম্পাদক,
গত ২০১৭ সালে পাঞ্জাব কংগ্রেসের তরফে পরামর্শদাতা ছিলেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর। আগামী ২০২২ সালে বিধানসভার নির্বাচনে পুনরায় প্রশান্ত কিশোর রাজনৈতিক পরামর্শদাতা হিসাবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। সাম্প্রতিক বাংলায় একুশে বিধানসভা নির্বাচন চলাকালীন পিকে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরনাথ সিংহের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। যেভাবে কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির সর্বশক্তি রুখে বাংলায় তৃণমূল কে আশাতীত সাফল্য এনে দিয়েছেন পিকে।তাতে তাঁর সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে কদর বেড়েছে বহুগুণ। ‘এ যেন আলাউদ্দিনের আশ্চর্যের প্রদীপ’, প্রশান্ত কিশোরই যেন আশ্চর্যের প্রদীপ পাঞ্জাব কংগ্রেসের কাছে।তবে বিধানসভা নির্বাচনের আগেই প্রশান্ত কিশোর কে ঘিরে বড়সড় প্রতারণা চক্র ফাঁস করলো পাঞ্জাব পুলিশ। পিকের নাম ভাঁড়িয়ে তোলাবাজি চলছে বলে অভিযোগ। একপ্রকার জালিয়াতি কবলে পাঞ্জাবের সংখ্যাগরিষ্ঠ কংগ্রেস নেতারা।পুলিশের প্রাথমিক অনুমান,  ৫ কোটি টাকা নেতাদের দলীয় প্রতীক ( টিকিট)  দেওয়া হবে বলে টোপ দিয়ে তোলা হয়েছে। যদিও এই জালিয়াতি চক্রের সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগে পাঞ্জাব  পুলিশ ৩ জন কে গ্রেপ্তার করেছে।রাজেশ কুমার বাসিন এবং রজত কুমার রাজা নামে দুজন কে গ্রেপ্তার করার পর মূল অভিযুক্ত হিসাবে গৌরব শর্মা কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যেহেতু বাংলায় শাসক দল তৃণমূলের ভোটকুশলী হিসাবে রয়েছেন প্রশান্ত কিশোর। তাই পাঞ্জাবে এই চক্রের সাথে বাংলার কোন যোগসূত্র আছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। গত মাসে এই পিকের নাম ভাঁড়িয়ে এই তোলাবাজি চক্রের পর্দাফাঁস হয়।পাঞ্জাবের জলন্ধরের গিলের কংগ্রেস বিধায়ক কুলদীপ সিংহ বৈদ্য কে পিকের নাম করে ১০ লক্ষ টাকা চাওয়া হয়।সংশ্লিষ্ট বিধানসভার কেন্দ্রের রিপোর্ট কার্ড ওই বিধায়কের পক্ষে দিয়ে আসন্ন বিধানসভার ভোটে পুনরায় টিকিট দেওয়া হবে, এইরুপ প্রতারণা করা হয়। ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরই টিকিট বন্টনে চুড়ান্ত সির্দ্ধান্ত নেবেন বলে আশস্ত করা হয়।পরে বিষয়টি প্রতারণা বলে বুঝতে পেরে গিলের কংগ্রেস বিধায়ক কুলদীপ সিংহ বৈদ্য জলন্ধর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।শুধু জলন্ধর নয়, লুধিয়ানা, অমৃতসর প্রভৃতি এলাকায় এই চক্রের হদিস মেলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *