প্রশাসন

বীরভূমে চারশো বেডের কোভিড হাসপাতাল হচ্ছে

খায়রুল আনাম বিপাশা আর্ট প্রেস,

আজ থেকেই কাজ শুরু বীরভূমের চারশো শয্যার কোভিড হাসপাতালের
       
করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে নাস্তানাবুদ হতে শুরু করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। জেলাগুলিতেও এই ঢেউ আছড়ে পড়ছে। এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় জেলা বীরভূমের সদর শহর সিউড়ীর  ১০ তলা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের  ৩ তলা থেকে ৬  তথা পর্যন্ত   কোভিড হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে। এই কোভিড হাসপাতালে ৪০০ শয্যার ব্যবস্থা রাখার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। তবে, আজ  মঙ্গলবার ১১ মে থেকে এখানে ২০০ শয্যার কাজ শুরু হচ্ছে। খুব শীঘ্রই বাকী ২০০ শয্যাতেও রোগী ভর্তি শুরু হয়ে যাবে  বলে জেলাশাসক  দেবীপ্রসাদ করণম জানিয়েছেন। এজন্য তিনি জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক  হিমাদ্রি আড়ি,  স্বাস্থ্য বিষয়ক  অতিরিক্ত জেলাশাসক প্রতিমা মণ্ডল-সহ অন্যান্য আধিকারিকদের সঙ্গে একটি বৈঠকও করেছেন। জেলার মধ্যে সবচেয়ে বড় এই কোভিড হাসপাতাল পরিচালনার জন্য চুক্তিভিত্তিক  নার্স ও চিকিৎসক নিয়োগের জন্য  ‘বিজ্ঞপ্তি’    জারি করা  হয়েছে।   জানা যাচ্ছে,  প্রথম দফায় করোনা মোকাবিলার জন্য   বোলপুর- লায়েকবাজারের একটি বেসরকারী হাসপাতালকে সরকারীভাবে অধিগ্রহণ করে সেখানে যে কেভিড হাসপাতাল গড়ে তোলা হয়, তা এখনও চালু রয়েছে। তার দায়ীত্ব দেওয়া হয় সিউড়ীর জেলা সদর হাসপাতালের সুপার ডা.  শোভন দে-কে। সেই  ডা. শোভন দে-কেই সিউড়ীর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে যে কোভিড হাসপাতাল  তৈরী  করা হয়েছে, তার দায়ীত্ব দেওয়া হয়েছে।  এখানে  ভর্তি যে রোগীদের চিকিৎসা চলছিলো, তাঁদের  সদর হাসপাতালের  পুরনো ভবনে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এখানকার কোভিড হাসপাতালে আপাপত ১৫ জন  চিকিৎসক, ৫০ জন নার্স ও ৮০ জন গ্রুপ-ডি কর্মী নিয়ে কাজ শুরু হচ্ছে। আরও  চিকিৎসক, কর্মী, নার্সের জন্য যে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে, তা পূরণ হলেই বাকী ২০০ শয্যায় রোগী  ভর্তির কাজও শুরু হয়ে যাবে। এখানে ভর্তি করোনা আক্রান্ত রোগীরা যাতে কোনওভাবেই  প্রয়োজনীয় অক্সিজেনের সমস্যায় না পড়েন, সে জন্য এখানে সর্বদাই  ৫০০টি অক্সিজেন সিলিণ্ডার মজুত থাকবে । আর এই পরিষেবায় গতি আনতে, এখানে  চুক্তিভিত্তিক চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী  নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেখে যিনিই  অনলাইনে আবেদন করবেন,  তাঁর আবেদনপত্র খতিয়ে দেখে যোগ্য বলে বিবেচিত হলে, অনলাইনেই তাঁকে নিয়োগপত্র দিয়েও দেওয়া হবে বলে স্বাস্থ্য দফতর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ।।     

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *