সভ্যতা

কিরীটী ভট্টাচার্য্য
(জামশেদপুর)

শত সহস্র যুগ ধরে – সভ্যতা তুমি আছো শুয়ে,
নিস্তেজ নির্লিপ্ত নির্বিকারে-
আঁখি দুটি চেয়ে!

সভ্যতা তুমি আছো শুয়ে,ঘুটঘুটে অন্ধকারে-
তোমার সমাধি ‘পরে
আজ উঠেছে গড়ে,আধিপত্যের উদ্ধত প্রাসাদ!
মানবিক মমি তুমি,
জেগেছে উন্মাদ!

         সভ্যতা তুমি আজ সংরক্ষিত!
       রোষানল দাবানল ঝড়ে ঝঞ্জায়-
              তবু তুমি হও নাই স্ফীত!

তোমার শরীর জুড়ে মাখা আছে,
নির্মমতার ন্যাট্ৰন
হিংসার সোডিয়াম কার্বনেট
রোষের সোডিয়াম বাইকার্বনেট
জিঘাংসার থ্রেট
তোমারে রেখেছি সাজিয়ে নিথর নিষ্প্রাণ
অমানবিকতার সুগন্ধী রসায়নে
আছে মাখা শরীর জুড়ে,
মমিঘরে চারিপাশে শকুনের পাখা
রয়েছো সংরক্ষিত,
তাই তুমি আজো অক্ষত!

              সভ্যতা!

তোমার কফিনে আজ বন্দি আবেগ,
ভালোবাসা-মানবতার ঠুকেছি পেরেক!
বন্দি করেছি আজ সহানুভূতিরে,
সভ্যতার পাণ্ডুলিপি বন্দি আজ মোমেরপালিশে!
প্রাগৈতিহাসিক মৃত ইতিগাঁথা লেখা ছিলো যাতে!

               সভ্যতা!

তুমি কি আজ করো আর্তনাদ?
কফিনের ভিতরে শুয়ে
মুক্তির তরে করো ছটফট?
শকুন শেয়াল আর হায়নার দলে
চারিপাশে করে চৌকিদারী!
মানুষের কাটা মুন্ডু হাতে উন্মাদেরা নৃত্যরত
ধর্মের ধ্বজাধারী ভন্ড কারবারী!

                সভ্যতা! 

ওঠো জেগে মমি থেকে শুধু একবার,
এ বড়ো কঠিন সময় নয়গো শোয়ার;
চোখ মেলো চেয়ে দ্যাখো কেটে যাবে মেঘ-
সভ্যতা ওঠো তুমি – জাগাও বিবেক!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *