শুক্রবার দিল্লি হাইকোর্টে অনুব্রতের দিল্লিযাত্রা সংক্রান্ত মামলার শুনানি 

মোল্লা জসিমউদ্দিন

আপাতত দিল্লিযাত্রা হচ্ছেনা বীরভূমের দাপুটে নেতা অনুব্রত মন্ডলের।আগামী শুক্রবার দিল্লি হাইকোর্টের নির্দেশের উপর নির্ভর করছে অনুব্রতের দিল্লিযাত্রার ভবিষ্যত।তবে নির্দেশ যায় হোক পক্ষে বিপক্ষে যায় ঘটুক দিল্লি হাইকোর্ট এর মধ্যে বিষয়টি তখন থাকবেনা, সুপ্রিম কোর্ট  অবধি এই মামলা টি গড়াবে তা নিশ্চিত ওয়াকিবহাল মহল। কেননা এই মামলায় কেন্দ্রীয়  তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই – ইডি যেমন সুপ্রিম কোর্টে গেছে এই মামলার  অন্য বিষয়ে, আবার অনুব্রত মন্ডল কিংবা সায়গল হোসেনেও দরবার করেছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টে। 

দিল্লি যাত্রা এড়াতে এবার দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ অনুব্রত মণ্ডল । দিল্লি হাইকোর্টে তাঁর আইনজীবী রয়েছেন  কপিল সিব্বল। নিজের শারীরিক অবস্থা দেখিয়ে দিল্লি যাত্রা এড়াতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি। আগামী শুক্রবার এই মামলার শুনানি রয়েছে ।এরফলে এখনই অনুব্রতকে দিল্লি নিয়ে যেতে পারছে না ইডি ।গরু পাচার কাণ্ডে অনুব্রত মণ্ডলকে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে ইডি। তাঁকে দিল্লিতে নিয়ে যেতে চায় কেন্দ্রীয় আর্থিক তদন্তকারী সংস্থাটি। এই আরজি নিয়ে দিল্লির রাউস অ্যাভিনিউয়ের বিশেষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল ইডি। পালটা দিল্লি হাইকোর্টে গেলেন অনুব্রত মন্ডল । তাঁর হয়ে আবেদন জানিয়েছেন আইনজীবী তথা প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বল। এরফলে মঙ্গলবার  ইডির আরজির শুনানি হয়নি দিল্লির বিশেষ আদালতে।অনুব্রতর আইনজীবীর দাবি, -‘ গরু পাচার সংক্রান্ত সমস্ত ঘটনা ঘটেছে বাংলায়। তাহলে কেন দিল্লিতে এনে অনুব্রতকে জেরা করা হবে’? এই প্রশ্ন তুলে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি। এ প্রসঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদন ও সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের প্রসঙ্গ টানা হয়েছে বলে জানা গেছে । তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর আরজির প্রেক্ষিতের আদালত জানিয়েছিল, ‘দিল্লি নয়, জেরা করা হবে কলকাতাতেই’। যদিও ইডির আইনজীবীর পালটা দাবি, -‘অভিষেকের বিষয়টা সম্পূর্ণ আলাদা। অনুব্রত তো ইতিমধ্যেই ধৃত। তাকে দিল্লি আনতে অসুবিধা কোথায়?’অনুব্রত মণ্ডলের প্রাক্তন  দেহরক্ষী সায়গল হোসেন, অনুব্রতকন্যা সুকন্যাকে ইতিমধ্যেই দিল্লিতে জেরা করেছে ইডি। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে অনুব্রত ও সুকন্যার হিসাবরক্ষক মণীশ কোঠারিকেও। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করে গরুপাচার মামলায়  আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত একাধিক নয়া তথ্য মিলেছে। সূত্রের খবর, সেই তথ্যের ভিত্তিতে অনুব্রতকে জেরা করা হয়। কীভাবে আর্থিক লেনদেন চলত, এর সঙ্গে লটারির কোনও যোগ রয়েছে কিনা, তাও জানার চেষ্টা করে ইডি। একটানা প্রায় সাড়ে পাঁচঘণ্টা ধরে জেরার পর গ্রেপ্তার হয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল।দিল্লি হাইকোর্টে আগামী শুক্রবার এই মামলার শুনানি রয়েছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *