এলআইসি নিয়ে নানান সন্দেহ? জেনে নিন আসল তথ্য

প্রশাসন

গোপাল দেবনাথ

  এলআইসি সম্বন্ধে কিছু তথ্য:
1) মোট তহবিল- 31 লক্ষ 11 হাজার কোটি টাকা।
2) মোট পলিসি গ্রাহক- 29 কোটি। (পলিসি গ্রাহকদের সংখ্যার ভিত্তিতে বিশ্বে 1 নং সংস্থা)
3) মোট কর্মচারী- 1 লাখ 12 হাজার।
4) মোট এজেন্ট- 11 লাখ 79 হাজার।
5) বিগত বছরে মোট লাভের পরিমাণ- 23 হাজার 656 কোটি টাকা।
6) এই বছরের প্রথম 5 মাসে পলিসি বিক্রি হয়েছে 67 লক্ষ 86 হাজার 210 টি।
7) এই 5 মাসে 23টি বেসরকারী বীমা কোম্পানি সামগ্রিক ভাবে যে ব্যবসা করেছে , এলআইসি একাই তার 3 গুণ ব্যবসা করেছে ।
8) এলআইসি কোনো কোম্পানি নয়। পুরো নাম- Life Insurance Corporation of India। কর্পোরেশনের অর্থ হল রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা। যার মালিক কেন্দ্রীয় সরকার এবং পলিসি গ্রাহকরা।
9) LIC Act, 1956 এর 37 নং ধারা অনুযায়ী প্রতিটি পলিসিতে বীমা রাশির অর্থ সম্পূর্ণ ফেরত দেওয়ার সরকারি গ্যারান্টির আছে। যা অন্য কোন আর্থিক সংস্থায় নাই। ব্যাঙ্কের ক্ষেত্রে এক লক্ষ পর্যন্ত গ্যারান্টি আছে ।
10) এই সংস্থায় যা লাভ হয়, তার 5% সরকার দেশের উন্নয়নের জন্য পায়। বাকি 95% টাকা পলিসি গ্রাহকদের মধ্যে বোনাস হিসেবে ভাগ করে দেওয়া হয়। তাই গ্রাহকদের পলিসিতে প্রতি বছর যে বাড়তি টাকা জমা হয়, তা সুদ নয়। বোনাস হিসেবে জমা হয়। ( Sec. 28 of LIC Act, 1956).
11) এই সংস্থার জন্ম- 01.09.1956.
63 বছর ধরে সুনামের সঙ্গে ব্যবসা করে এলআইসি আজ সুপ্রতিষ্ঠিত ।
12) বর্তমানে সম্পূর্ণ কম্পিউটার চালিত ব্রাঞ্চের সংখ্যা-2048 টি। এছাড়া, স্যাটেলাইট অফিসের সংখ্যা-1408 টি।
13) এলআইসির 74% টাকা সরকারি বন্ড ও সিকিউরিটিজে নিরাপদে বিনিয়োগ করে । বাকী 26% টাকা বিভিন্ন রাজ্য সরকারকে ঋন ও শেয়ারে বিনিয়োগ করে।

বর্তমানে IDBI ব্যাঙ্কের 51% শেয়ার এই সংস্থা কিনেছে । ফলে ঐ ব্যাঙ্ক এখন এলআইসির অধীনস্থ (Subsidiary)। পাঞ্জাব ন্যাশানাল ব্যাঙ্কেরও কিছু শেয়ার সম্প্রতি কেনা হয়েছে । যেহেতু ঔ ব্যাঙ্ক দুটো লোকসানে চলছিল, তাই সেখানে কেন বিনিয়োগ করা হল, তাই নিয়ে বেশ কিছু অপপ্রচার শোনা যাচ্ছে । কিন্তু তারা এটা বুঝছে না যে কোথাও অর্থ বিনিয়োগ হলে সেটা কখনোই লাভ-লোকসানের হিসাবে প্রতিফলিত হয় না যতক্ষণ না তা বিক্রয় করা হয়। এটাও জানে না যে ঐ ব্যাঙ্কের গ্রাহকদের মধ্যে পলিসি বিক্রি করে এলআইসি তার আর্থিক অবস্থা আরও সমৃদ্ধ করছে।

এই সংস্থা দেশের উন্নয়নের কাণ্ডারী ।
কিছু স্বার্থান্বেশী চক্র এলআইসির একাধিপত্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে এর গরিমাকে নষ্ট করার জন্য প্রচার মাধ্যমে ও সোসাল মিডিয়ায় অপপ্রচার করছে।

তাই, অনুরোধ, গুজবে কান না দিয়ে এই দায়িত্বশীল বিরাট সংস্থার প্রতি সম্পূর্ণ আস্থা রাখুন। নিজের পরিবারের সুরক্ষা নিশ্চিত করুন। বিপদের দিনে পরিবারের পাশে কেউ থাকবে না। একমাত্র এলআইসি থাকবে। তাই অসময়ে পরিবারের ভরসা একমাত্র এলআইসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.