কালনায় সর্বপ্রথম মরণোত্তর দেহদানে অঙ্গীকার তিনজনের

প্রশাসন

শ্যামল রায়,

শনিবার কালনা শহরের স্ফটিক ক্লাবের উদ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদান শিবির অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও ক্লাবের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে কালনা শহরে এই প্রথম তিন জন বিশিষ্ট ব্যক্তি স্বেচ্ছায় দেহদানের অঙ্গীকার করলেন। এর মধ্যে রয়েছেন একজন মহিলা।ক্লাবের কোষাধক্ষ্য সুব্রত দত্ত জানিয়েছেন যে এদিন কার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু, কালনা পৌরসভার চেয়ারম্যান দেবপ্রসাদ  বাগ ,বিশিষ্ট সাংবাদিক গোবিন্দ রায় সহ অনেকে। স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন ৬০জন।সুব্রত দত্ত আরও জানিয়েছেন যে কালনা শহরের কাসারি পাড়ার বাসিন্দা সুস্মিতা গাঙ্গুলী এবং তার ছেলে অরিজিৎ গাঙ্গুলী স্বেচ্ছায় দেহ দানের অঙ্গীকার পত্রে স্বাক্ষর করেছেন। এছাড়াও শুভ্র শচী দাস মহাপ্রভু পাড়ার বাসিন্দা স্বেচ্ছায় দেহ দাননের অঙ্গীকার পত্রে স্বাক্ষর করেছেন ।ক্লাবের কোষাধক্ষ্য সুব্রত দত্তের দাবি এই প্রথম কালনা মহকুমার মধ্যে প্রথম দেহদানের অঙ্গীকার পত্রে স্বাক্ষর করলেন কালনা শহরের এক মহিলাসহ তিন বাসিন্দা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় বেশ প্রবল উৎসাহ উদ্দীপনা ছিলো রক্তদান ও দেহদান ঘিরে। স্থানীয় বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডু অনুষ্ঠানের উদ্বোধন কালে জানিয়েছেন যে এই ধরনের মহতী উৎসব ধারাবাহিকভাবে হওয়া প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.