বধূ খুনে স্বামী ও শাশুড়ি গ্রেপ্তার নাদনঘাটে

পুলিশ

শ্যামল রায়,

নাদনঘাট থানার সমুদ্রগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের বিবিরহাট নতুন পাড়ায় বধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগে গ্রেপ্তার হলো স্বামী ও শাশুড়ি।নাদনঘাট থানার পুলিশ জানিয়েছেন যে ধৃতদের নাম বাপি দুর্লভ ও সুভদ্রা দুর্লভ।গত শুক্রবার কালনা মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।
জানা গিয়েছে যে বুধবার চন্দনা দুর্লভ  ২৭ নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়।মধুর মা অতসী মাঝি নাদনঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন যে তার মেয়েকে পুড়িয়ে মারা হয়েছে।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে যে ১০ বছর আগে মন্তেশ্বরের দেনুর গ্রামের চন্দনা দেবীর সঙ্গে পেশায় দিনমজুর বাপির বিয়ে হয়।তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।অভিযোগ যে স্বামী বাপি প্রতিদিনই নেশাগ্রস্ত হয়ে বাড়িতে ফিরে তার স্ত্রীকে প্রচন্ড ভাবে মারধর করতো এর ফলে সংসারে অশান্তি লেগেই থাকত আর এর ইন্দন যোগাতে তার শাশুড়ি মা এমনটাই অভিযোগ।তাই স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং এই ঘটনায় মৃত্যু হয় চন্দনার।
ঘটনার পরপরই স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন পালিয়ে যায়।নাদনঘাট থানার পুলিশ খবর পেয়ে চন্দনা দেবী কে উদ্ধার করে নবদ্দীপ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে সেখানেই মৃত্যু হয় চন্দনার। জানা গিয়েছে যে মৃত্যুকালীন জবানবন্দি দিয়ে গিয়েছেন চন্দনা।
পুলিশ স্বামী বাপি কে এবং শাশুড়ি কে গ্রেপ্তার করে।
এই ঘটনায় এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.